টিপস

আপনার জমির মৌজাম্যাপ থেকে দাগ দেখুন

আপনি কি জমির মৌজা থেকে জমির দাগ নম্বর এবং খতিয়ান নম্বর বের করতে চাচ্ছেন? তাহলে আপনাকে এই নিবন্ধের স্বাগতম। ডিজিটাল বাংলাদেশ এর শর্ত অনুযায়ী এই সকল তথ্য এখন আপনি আপনার মোবাইল কম্পিউটারে ঘরে বসে পেতে পারেন।

আজ আমি আপনাদের দেখাবো কিভাবে আমরা অনলাইনে আমাদের জমির দাগ নাম্বার এবং জমির পরিমাণ আরও বেশকিছু প্রয়োজনীয় তথ্য কিভাবে জানতে পারি সে সকল বিষয় জানবো। এই নিবন্ধটি পড়লে আমরা নিজেরাই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জমির মৌজা থেকে দাগ নম্বর দেখে নিতে পারব।

জমির মৌজাম্যাপ থেকে দাগ দেখুন

জমির মৌজা থেকে দাগ ও খতিয়ান নম্বর বের করতে হলে আপনাকে এসিল্যান্ড অফিস এর ওয়েবসাইটে গিয়ে বের করতে হবে। ধরুন আপনি চট্টগ্রাম ভূমি অফিসের ওয়েবসাইটে ঢুকেছেন। ওয়েব সাইটে ঢোকার পর আপনি বামপাশে অপশন দেখতে পাবেন যেখানে লেখা আছে

  • জমির মৌজাম্যাপ থেকে দাগ নম্বর দেখুন।
  • ওই অপশন এ ক্লিক করলে আপনি মৌজা গুলোর সিরিয়াল দেখতে পারবেন।
  • তারপর আপনার কাংখিত মৌজা টি সিলেক্ট করুন। ও
  • খানেই ধীরে ধীরে দাগ নম্বর এবং মৌজা গুলো দেওয়া আছে।
  • ওখানের কাঙ্খিত সিট নম্বরে ক্লিক করুন অর্থাৎ যে সিট আপনার জমিতে অবস্থিত।
  • সিট (মৌজাম্যাপ)  ওখানে আপনার জমির দাগ নম্বর জানার পর দাগ নম্বর থেকে পরবর্তীতে মালিকের নাম বের করতে পারবেন।

এসংক্রান্ত আমরা একটা পোস্ট করেছি আপনি চাইলে সেই পোষ্টটি দেখে নিতে পারেন।
আমরা ঐ পোষ্টে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। দাগ নাম্বার দিয়ে জমির মালিকের নাম

বর্তমান সরকারের ডিজিটালাইজেশনের ফলে সবকিছু খুব সহজ হয়ে গিয়েছে। হাতের কাছে সবকিছুই এখন পাওয়া যাচ্ছে। তাই কোন কিছুই আর আমাদের সাধ্যের বাইরে নেই। আমরা চাইলে সবকিছুই এখন হাতের কাছে পেতে পারি।

জমির মৌজাম্যাপ থেকে দাগ নম্বর এবং জমির মালিকের নাম্বার করার জন্য জেলা ভূমি অফিস ওয়েবসাইটে ঢুকতে হয়। এখানে উল্লেখ্য যে জেলা ভূমি অফিসের ওয়েবসাইটে এই তথ্যগুলো এখনো পুরো বাংলাদেশের হালনাগাদ করা হয়নি। খুব শীঘ্রই হালনাগাদ করবে। হালনাগাদ হয়ে গেলে পুরো বাংলাদেশের সকল জেলার সকল গ্রাম মৌজার এসব তথ্য ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে। তাই বর্তমানে অনেকেই ওয়েবসাইটে এসকল তথ্য পাবেন না।

Md Jahidul Islam

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা বিভাগ হতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করে 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।
Back to top button