টিপস

বুকের দুধ না পেলে করণীয়, দুধ বৃদ্ধির উপায় ,দোয়া ,ট্যাবলেট ২০২২

আসসলামু ওলাইকুম আজ আমরা আপনাদের মাঝে এসেছি ছোট্ট শিশুর বুকের দুধ না পেলে কি করবেন বৃদ্ধির উপায়, আর ট্যাবলেট , দোয়া এগুলোর জন্য বিস্তারিত কিছু বলার উদ্দেশ্যে আপনাদের মাঝে হাজির হয়েছি,

শিশু বুকের দুধ না পেলে করণীয়

একটি শিশু পৃথিবীতে ভূমিষ্ঠ হবার পর থেকে ছয় মাস পর্যন্ত শুধুমাত্র মায়ের বুকের দুধ পান করে। মায়ের বুকের দুধে বাচ্চার মেধা শক্তির বিকাশ ঘটে। বাচ্চা পুষ্টিগুণসম্পন্ন হয়। কিন্তু এখন মায়ের বুকের দুধ যদি বাচ্চা কম পায় তবে বাচ্চা অপুষ্টিজনিত রোগ হবে। বাচ্চা সারাক্ষণ কান্না করবে ,বাচ্চার মেজাজ খিটখিটে আকার ধারণ করবে। তাই বাচ্চা মায়ের বুকের দুধ কম পেলে মাকে প্রোটিন বা ক্যালসিয়ামযুক্ত খাবার দিতে হবে। বাচ্চাকে মায়ের বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় অবশ্যই মায়ের শরীরের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। মাকে সুষম খাবার খেতে হবে। যেমন দুধ,ডিম, শাকসবজি মাছ, কালো জিরা, মাংস বিভিন্ন ধরনের ফলমূল এবং কে প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে। এ সকল খাবার মায়ের খাবার এর সাথে রাখতে হবে প্রতিনিয়ত।

মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধির উপায়

কিছু খাবার রয়েছে যা দুধের উদপাদন বৃদ্ধি করে এখানে বুকের দুধের পরিমাণ বাড়িয়ে তুলতে পারে এমন সব খাবারের বর্ণনা নিম্নে দেওয়া হলঃ:

  • শাকসবজি: বেশি করে প্রতিনিয়ত মায়ের খাদ্য তালিকা শাক-সবজি রাখতে হবে। সবজিতে রয়েছে সকল ধরনের পুষ্টিগুণ বিদ্যমান। শাকসবজি মায়ের শরীরে দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে পারে। শাকসবজি হচ্ছে কৃষিজাত দ্রব্য আর এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পানি যা মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।
  • ফল: ফল হচ্ছে পুষ্টিকর খাবার, ফলা এ রয়েছে একেক রকমের ভিটামিন ,ভিটামিন এ ভিটামিন সি ভিটামিন ডি বিভিন্ন পুষ্টিগুণ সম্পন্ন বিদ্যমান।যা মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধি হতে সাহায্য করে। ফল দিয়ে বিভিন্ন ধরনের রেসিপি তৈরি করে মা খাবার এর তালিকায় রাখতে পারে।
  • মৌরি: মৌরী সালাত ,মৌরি , সুপ মৌরি বীজ ও মৌরি রেসিপি যেভাবেই খান না কেন ,মৌরিতে রয়েছে বিভিন্ন পুষ্টি। বুকের দুধ উৎপাদনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। বুকের দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হলে সালাত এর সঙ্গে মৌরি যোগ করতে পারেন এবং শাকসবজি সঙ্গে রান্না করতে পারেন। সমৃদ্ধ এই হাব থেকে ল্যাকটশন বিষয়ক উপকারিতা পাওয়া যায়। মৌরির চা ও খাওয়া যায়।
  • গরম মসলা: গরম মসলা হচ্ছে তরকারিতে দেওয়ার জন্য একটি উপকরণ। এটি গঠিত হয়েছে এলাচ ,তেজপাতা ,গোলমরিচ, লবঙ্গ দারুচিনি ,মৌরি, ধনে বীজ ইত্যাদি সমন্বিত। গরম মসলা তরকারির স্বাদ বৃদ্ধি করে। বুকের দুধের পরিমাণ বাড়াতে হলে তরকারিতে গরম মসলা দিতে হবে।
  • পানি: বেশি করে পানি পান করতে হবে এ স্তন্যপায়ী মায়ের জন্য, কেননা পানি পান করলে মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধি হবে। চিকিৎসকের ভাষায় বলা হয়েছে যখনই মা তার সন্তানকে বুকের দুধ দেবে তার আগে এক গ্লাস পানি পান করে নিবে। দুধ বৃদ্ধি করার সহজ এমন সবচেয়ে উপকারী পদ্ধতি হলো বেশি করে পানি পান করলে দুধ বৃদ্ধি হয়। প্রতিদিন 8 থেকে 12 গ্লাস পানি পান করবে।

মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধি করার জন্য ট্যাবলেট

পৃথিবীতে শিশুটি ভূমিষ্ঠ হবার পর তার মায়ের বুকের দুধ খাওয়ার জন্য ব্যস্ত হয়ে থাকে। আর ঐ শিশুটি যদি মায়ের স্তনে দুধ কম পায় তখন শিশু কান্না করতে পারে। পৃথীবিতে সব মায়ের বুকে একই রকম দুধ হয় না কারো কম কারো বেশি হয়ে থাকে। আর যখন মায়ের বুকের দুধ কম হতে থাকে তখন সে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ট্যাবলেট খেতে পারে। ডাক্তাররা সাধারণত যে ট্যাবলেট দিয়ে থাকে মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধি করার জন্য।

  • Mombit
  • Domaid
  • Don-A ৪/Omidon
  1. Mombit ট্যাবলেট খেতে হয় খালি পেটে।
  2. Domaid ট্যাবলেট খেতে হয় ভরা পেটে। ওষুধ টি খাবার ফলে মায়ের বুকের দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি হয়। অমিডন ট্যাবলেট ও মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধির জন্য ব্যবহৃত হয় ।
  3. Don-A বুকের দুধ বৃদ্ধি করে। ফলে সন্তান তার মায়ের দুধের ঘাটতি পায় না।কিন্তু হ্যাঁ ট্যাবলেট খেয়ে দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি করার থেকে ফলমূল-শাকসবজি গুলো খেয়ে দুধ বৃদ্ধি করা সন্তান ও মায়ের জন্য উত্তম।

মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধির জন্য দোয়া বা আমল

আল্লাহ পাকের কুরআনের সব বিষয়ে দোয়া বা আমল দেওয়া আছে শুধু ওইগুলো আমল করতে হবে তাহলে আমরা আমাদের জীবনের সকল সমস্যার সমাধান করতে পারব ইনশাল্লাহ।

দোয়াটি ,হচ্ছে “ইয়া মাতিনু”। এটী হচ্ছে আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নাম।এই নামটি পড়ে একটি গ্লাস এর ভিতর সাতবার ফু দিতে হবে এবং ওই পানি দিয়ে মা তার বুকের স্তন ধৈত করবে এবং বাকি পানি পান করবে। তাহলে আল্লাহ পাকের অশেষ রহমতে মায়ের বুকের দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি হবে ,যাতে করে সন্তান দুধ পান করে তৃপ্তি পাবে।

পরিশেষে বলতে চাচ্ছি ,এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদেরকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন,উপরের তথ্যগুলো আপনাদের জানানোর জন্য চেষ্টা করছি এগুলো আপনারা নিজেও জানবেন এবং অন্যকে জানানোর জন্য উৎসাহিত করবেন।

Jahidul Islam

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা বিভাগ হতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করে 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।
Back to top button