টিপস

ফ্রী ফায়ার গেম খেললে কি ক্ষতি হয়?

ফ্রী ফায়ার বর্তমানে তরুণ সমাজের কাছে খুবই জনপ্রিয় একটি ভিডিও গেম। বর্তমান তরুণ সমাজ এই ফ্রি ফায়ারে তাদের প্রত্যেক দিনের 24 ঘন্টার মধ্যে 10 ঘণ্টার বেশি সময় ব্যয় করছে। এটা চরম অবনতি বলা চলে। বাংলাদেশের ব্যাপক সংখ্যক তরুণ ফ্রী ফায়ার ব্যবহার করছে। এবং তারা আরো বন্ধুদের ফ্রী ফায়ার এর প্রতি আসক্ত করার চেষ্টা করছে। এখন ঘটনা এরকম দাঁড়িয়েছে আপনি রুমে শুয়ে আছেন, হঠাৎ শুনতেছেন পাশের বাসায় বা রুমে থেকে একজন চিৎকার করে বলছে, মার! মার! গুলি কর! গুলি কর! কেউ আবার বলছে ভাই আমাকে বাঁচাও! সত্যি এসব কথা শুনে সকলেই আঁতকে উঠবে! তাই আসুন ফ্রী ফায়ার গেম খেলে কি কি ক্ষতি হয় সে সম্পর্কে একটু জেনে নেই।

ফ্রী ফায়ার গেম  ক্ষতিকর দিক

যেকোন নেশায় আমাদের ক্ষতি করে। সোজা কথা ফ্রী ফায়ার খেলা যেমন একটি নেশা পরিণত করে, তাই ফ্রী ফায়ার গেম খেলা ক্ষতিকর। ফ্রী ফায়ার গেম খেলে সমাজের নৈতিক অবক্ষয় হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ, এই গেমে শুধুমাত্র মারামারি খুনাখুনি এগুলো করা হয়। এগুলো দেখে বাস্তব জীবনেও কেউ এ পথে চলে যাচ্ছে। তাছাড়া ফ্রী ফায়ার এ ডায়মন্ড কেনার জন্য অনেকেই বিভিন্ন অন্যায় মূলক কাজ করছেন।

  • সামাজিক অবক্ষয়।
  • পড়াশোনার ব্যাপক ক্ষতি।
  • মেধা শক্তি লোপ পায়।
  • সাংসারিক কাজ কর্মের ক্ষতি হয়।
  • পারিবারিক অশান্তির তৈরি হয়।
  • ঘুম কম হয়।
  • ক্লাসে অমনোযোগী হওয়া।
  • নৈতিক চরিত্র অবক্ষয়।
  • অযথা অর্থ নষ্ট হয়।
  • ক্ষতি হয় ব্রেনের,
  • ক্ষতি হয় চোখের,,
  • ক্ষতি হয় স্বাস্থ্যের,
এতক্ষণ আমরা ফ্রি ফায়ার গেমস নিয়ে ক্ষতিকর কিছু দিক তুলে ধরেছি। এখন আমরা ফ্রি ফায়ার গেম সম্পর্কে পবিত্র কোরআনে কি বলা আছে এ সম্পর্কে জেনে নেই। সহজ কথায় পবিত্র কুরআনে বর্ণনা করা আছে হাতের আঙ্গুল দিয়ে খেলা যায় এমন খেলা নাজায়েজ। মানসিক এবং শারীরিক স্বাস্থ্যের ক্ষতিকর এসব গেম সম্পূর্ণ হারাম। ফ্রী ফায়ার পাবজি গেমস খেলো আর ঠিকমতো ছালাত আদায় করতে পারে না। এ সম্পর্কে ইসলামের যে আয়াতটি আছে তা দেখে নিন।

বাস্তবে তারা রব বিমুখী হয়ে পরেছে। কারণ, আল্লাহ তা’আলা নিজেই বলেছেন,

ﺧَﺘَﻢَ ﺍﻟﻠّٰﮧُ ﻋَﻠٰﯽ ﻗُﻠُﻮۡﺑِﮩِﻢۡ ﻭَ ﻋَﻠٰﯽ ﺳَﻤۡﻌِﮩِﻢۡ ؕ ﻭَ ﻋَﻠٰۤﯽ ﺍَﺑۡﺼَﺎﺭِﮨِﻢۡ ﻏِﺸَﺎﻭَۃٌ ﻭَّ ﻟَﮩُﻢۡ ﻋَﺬَﺍﺏٌ ﻋَﻈِﯿۡﻢٌ ٪﴿۷ ﴾

আল্লাহ তাদের অন্তরে এবং তাদের কানে মোহর লাগিয়ে দিয়েছেন এবং তাদের চোখসমূহে রয়েছে পর্দা। আর তাদের জন্য রয়েছে মহা আযাব।

{সূরাঃ আল-বাকারহ | আয়াতঃ ৭}

ফ্রী ফায়ার গেম

ফ্রী ফায়ার গেম ইহুদী-নাছারা চক্রান্ত করে তৈরি করেছে। মুসলিম যুব সমাজকে শিক্ষা-দীক্ষায় জ্ঞান-গরিমা পিছিয়ে দেওয়ার জন্য ফ্রী ফায়ার গেমটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিয়েছে। বিশেষ করে মুসলিম রাষ্ট্রের টার্গেট করে। ফ্রি ফায়ার গেম এর মালিক নির্দিষ্ট কোন ব্যক্তি নেই। সিঙ্গাপুরের একটি গেমিং প্রতিষ্ঠান এই গেরিনা ফ্রি ফায়ার গেম তৈরি করে। গেরিনা নামটি দুটো শব্দ উচ্চারণ রয়েছে। গ্লোবাল এবং এরিনা। 2009 সাল থেকে কোম্পানিটি বিভিন্ন রকম গেম তৈরীর জন্য কাজ করছে। বিভিন্ন জনপ্রিয় গেম তৈরি পাশাপাশি ফ্রী ফায়ার গেমটি তাদের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি গেম। বিশ্বের কোটি কোটি তরুণ যুবক এই গেমটি খেলে থাকে।

Md Jahidul Islam

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা বিভাগ হতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করে 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।
Back to top button